ব্র্যাক ব্যাংক—প্রথম আলো ট্রাস্ট: অদম্য মেধাবী কাল অদম্য মেধাবী সংবর্ধনা

আগামীকাল শনিবার ব্র্যাক ব্যাংক-প্রথম আলো ট্রাস্টের পক্ষ থেকে ৭৬ জন অদম্য মেধাবীকে সংবর্ধনা দেওয়া হচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে চলতি বছর এসএসসিতে জিপিএ-৫ পাওয়া ৫০ জন এবং এইচএসসিতে জিপিএ-৫ পাওয়া ২৬ জন। ২০১১ সালে এসএসসিতে জিপিএ-৫ পাওয়া যে ৫০ জন অদম্য মেধাবীকে শিক্ষাবৃত্তি দেওয়া হয়েছিল, তাঁদের মধ্য থেকে এই ২৬ জন এবার এইচএসসিতেও জিপিএ-৫ পেয়ে তাঁদের কৃতিত্ব অক্ষুণ্ন রেখেছেন। এই ২৬ জনকে দেওয়া হবে উচ্চতর শিক্ষার জন্য বৃত্তি।

অনুষ্ঠান শুরু হবে সকাল সাড়ে ১০টায়। স্থান: সিএ ভবনের দশম তলা (১০০ কাজী নজরুল ইসলাম অ্যাভিনিউ, কারওয়ান বাজার, ঢাকা)। অধ্যাপক আনিসুজ্জামান থাকবেন প্রধান অতিথি। অন্যান্যের মধ্যে ব্র্যাক ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সৈয়দ মাহবুবুর রহমান ও বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত থাকবেন।

প্রথম আলোর কৃতী শিক্ষার্থীদের আনুষ্ঠানিক সংবর্ধনা দেওয়া শুরু হয়েছিল ১৯৯৯ সালে। ওই বছর সিরডাপ মিলনায়তনে এইচএসসি পরীক্ষায় কৃতী শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়। সেখানে অনেক শিক্ষার্থী ছিল, যারা দারিদ্র্যের বাধা অতিক্রম করে কৃতিত্ব অর্জন করেছিল। প্রথম আলোরনিজস্ব তহবিল থেকে সেবার বেশ কয়েকজন দরিদ্র শিক্ষার্থীকে শিক্ষাবৃত্তি দেওয়া হয়।

এরপর ২০০৬ সাল থেকেই দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের সুবিধাবঞ্চিত যে শিক্ষার্থীরা জীবিকার সংগ্রামের পাশাপাশি লেখাপড়া অব্যাহত রেখে কৃতিত্ব অর্জন করেছিল, প্রথম আলোর সাংবাদিকেরা তাদের জীবনের গল্প নিয়ে সংবাদ পাঠিয়েছেন। প্রথম আলো তাদের বলেছে ‘অদম্য মেধাবী’।

প্রথম আলো ট্রাস্ট আনুষ্ঠানিকভাবে ২০০৭ সালে অদম্য মেধাবীদের শিক্ষাবৃত্তি দেওয়া শুরু করে। ওই বছর ২১ জন অদম্য মেধাবীকে শিক্ষাবৃত্তি দেওয়া হয়েছিল। ২০০৯ সাল থেকে এসব অদম্য মেধাবীকে ঢাকায় সংবর্ধনা দেওয়ার উদ্যোগ শুরু হয়।

২০১০ সাল থেকে অদম্য মেধাবীদের শিক্ষাবৃত্তি দেওয়ার আর্থিক দায়িত্ব নিয়ে এতে যুক্ত হয় ব্র্যাক ব্যাংক। তাদের অংশগ্রহণে এ কর্মকাণ্ডের ব্যাপ্তি আরও বেড়ে যায়। এসএসসিতে জিপিএ-৫ পাওয়া অদম্য মেধাবীদের মধ্যে যারা এইচএসসিতেও জিপিএ-৫ পাবে, তাদের চিকিৎসাবিদ্যা ও প্রকৌশলবিদ্যা পড়ার জন্য শিক্ষাবৃত্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় ব্র্যাক ব্যাংক।