মাদকবিরোধী পরামর্শ সহায়তা ৭১ সন্তান মাদকাসক্ত হলে চিকিৎসা করান

নিজস্ব প্রতিবেদক | আপডেট: ০১:২১, মে ১১, ২০১৬ |

রাজধানীর ধানমন্ডির ডব্লিউভিএ মিলনায়তনে গতকাল প্রথম আলো আয়োজিত ‘আসুন মাদকমুক্ত থাকি’ শীর্ষক পরামর্শ সভায় (বাঁ থেকে) আনিসুল হক, অভ্রদাশ ভৌমিক, জিল্লুর রহমান খান, আহমেদ হেলাল, ফারজানা রহমান, ব্রাদার রোনাল্ড ড্রাহোজাল ও জোবায়ের মিয়া l প্রথম আলো

মাদকবিরোধী পরামর্শ সহায়তা অনুষ্ঠানে এক অভিভাবক বললেন, ‘সন্তান মাদকাসক্ত হলে হতাশ হবেন না, চিকিৎসা করান। পরিবারের কেউ মাদকাসক্ত হলে ওই পরিবারের কী অবস্থা হয়, ভুক্তভোগী ছাড়া তা কেউ বুঝবেন না। তাঁদের উদ্দেশে বলছি, ভালো থাকার জন্য নিজের তাগিদে পরামর্শ অনুষ্ঠানে নিয়মিত আসি।’
প্রথম আলো ট্রাস্ট মাদকবিরোধী আন্দোলনের উদ্যোগে রাজধানীর ধানমন্ডির ডব্লিউভিএ মিলনায়তনে গতকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত মাদকবিরোধী পরামর্শ সহায়তার ৭১তম অনুষ্ঠানে উপস্থিত ওই অভিভাবক এ কথা বলেন।
প্রথম আলো ট্রাস্টের কর্মসূচি ব্যবস্থাপক ফেরদৌস ফয়সালের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আনিসুল হক। মাদকাসক্ত ব্যক্তি ও তাঁদের অভিভাবকদের কাছ থেকে বিভিন্ন সমস্যা শুনে পরামর্শ দেন জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক আহমেদ হেলাল, অভ্রদাশ ভৌমিক, ফারজানা রহমান, জিল্লুর রহমান খান, শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজের মনোরোগ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. জোবায়ের মিয়া ও আপনের নির্বাহী পরিচালক ব্রাদার রোনাল্ড ড্রাহোজাল।
আলোচকেরা বলেন, মাদক গ্রহণ করার জন্য মাদকাসক্তরা অনেক মিথ্যা কথা বলেন, এ বিষয়ে অভিভাবকদের সচেতন থাকতে হবে। অনেকের ভুল ধারণা রয়েছে, বিয়ে দিয়ে দিলে মাদকাসক্তি সেরে যাবে। কোনো ব্যক্তি ঘুমের ওষুধ ও সিগারেটের মাধ্যমে নেশায় জড়িয়ে পড়তে পারেন। সন্তানদের সঙ্গে এমন সম্পর্ক গড়তে হবে, যাতে তারা মা-বাবাকে সবকিছু খুলে বলতে পারে।
প্রতি মাসে মাদকাসক্ত ও তাঁদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে একটি পরামর্শ সহায়তা অনুষ্ঠান হয়। প্রথম আলো বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের তারিখ জানিয়ে দেয়। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন প্রথম আলো ট্রাস্টের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা আজিজা আহমেদ।