শেরপুর ও পাটগ্রামে ২০০ কম্বল পেল শীতার্ত মানুষ

শেরপুর ও পাটগ্রাম (লালমনিরহাট) প্রতিনিধি | আপডেট: ০২:১৪, জানুয়ারি ২৫, ২০১৭ | প্রিন্ট সংস্করণ

 sherpur- winter cloth distribution picture1- 24.01.2017প্রথম আলো ট্রাস্টের উদ্যোগে ও এক্সিম ব্যাংকের সহায়তায় শেরপুর ও লালমনিরহাটের পাটগ্রামে ২০০ কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। কম্বল বিতরণে সাহায্য করেন প্রথম আলো বন্ধুসভার সদস্যরা।

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার গারো পাহাড়সংলগ্ন রামেরকুড়া গ্রামের মাঠে গতকাল মঙ্গলবার উপজেলার সাতটি গ্রামের ৫০ জন শীতার্ত মানুষের হাতে কম্বল তুলে দেন ঝিনাইগাতী অছি-আমরুন্নেছা বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উম্মে কুলছুম। তিনি বলেন, ‘প্রথম আলো শুধু একটি সংবাদপত্রই নয়, এটি একটি সামাজিক প্রতিষ্ঠানও বটে। প্রতিষ্ঠানটি তার সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে শীতবস্ত্র নিয়ে গারো পাহাড়ের দুঃখী মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে। এটি খুবই প্রশংসনীয়।’
কম্বল পেয়ে উত্তর দাড়িয়ারপাড় গ্রামের দিনমজুর মোজাম্মেল হক (৬০) বলেন, ‘শীতে কষ্ট পাইলেও আমগরে কেউ কম্বল দেয় নাই। আপনারাই আমগরে প্রথম কম্বল দিলেন।’
শেরপুরে আরও ৫০টি কম্বল দেওয়া হয় সদর উপজেলার সাতটি গ্রামের শীতার্ত ব্যক্তিদের।
লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার পাটগ্রাম ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে বাড়ি বাড়ি গিয়ে গত সোমবার ও গতকাল ১০০ কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। এর মধ্যে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীসহ ২০ শিক্ষার্থীকেও কম্বল দেওয়া হয়। এ সময় জোংড়া ইউনিয়নের সীমান্তের ধবলগুড়ি চতুরবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান বলেন, ‘প্রথম আলোকে জানাই আমার লাখো সালাম।’
উপস্থিত ছিলেন শিক্ষক জুলফিকার আলী, গোলাম মোস্তফা, শিক্ষক বন্নী শিখা রায়, পাটগ্রাম বন্ধুসভার সভাপতি অজিত রঞ্জন রায় ও সদস্য তাহেরুল ইসলাম।